পায়রা বন্দরের সক্ষমতা বাড়াতে নতুন চুক্তি

জনপদ ডেস্ক: পায়রা বন্দরের সক্ষমতা বাড়াতে বন্দরে আরও বড় জাহাজ ভেড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এজন্য বেলজিয়ামভিত্তিক ড্রেজিং কোম্পানি ‘জান ডে নুল’ এর সঙ্গে পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।

রোববার (১৩ জুন) রাজধানীর হোটেল রেডিসন ব্লুতে এ চুক্তি স্বাক্ষর করা হয়।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ২০১৩ সালের ১৯ নভেম্বর পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় পায়রা বন্দর উদ্বোধন করা হয়। এটি দেশের তৃতীয় সমুদ্র বন্দর। ২০১৬ সালের ১৩ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী এ বন্দরে জাহাজ চলাচলের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পর থেকে এ পর্যন্ত ১৩৪টি বাণিজ্যিক জাহাজ বন্দরে প্রবেশ করেছে। এ জাহাজগুলো থেকে সরকার প্রায় ৩০০ কোটি টাকার রাজস্ব পেয়েছে। বর্তমানে এই চ্যানেলের গভীরতা ৬.৩ মিটার বজায় রাখা হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে আরও জানানো হয়, রাবনাবাদ চ্যানেলে ক্যাপিটাল ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে ৭৫ কিলোমিটার দীর্ঘ চ্যানেলের গভীরতা ১০.৫ মিটারে উন্নীত করা হবে। এর ফলে ৪০ হাজার টনের কার্গোবাহী এবং ৩ হাজার টিইইউ বিশিষ্ট জাহাজ বন্দরে সরাসরি ভিড়তে সক্ষম হবে। ড্রেজিং করতে বেলজিয়ামভিত্তিক ড্রেজিং কোম্পানি ‘জান ডে নুল’ এর সঙ্গে চুক্তি করেছে পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষ।

পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়, নিজস্ব অর্থায়নে ড্রেজিংয়ের উদ্যোগ নেওয়ায় বিপুল পরিমাণ অর্থ সাশ্রয় হয়েছে। দেশের ক্রমবর্ধমান বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভকে দেশের উন্নয়নে ব্যবহারের জন্য প্রধানমন্ত্রী ‘বাংলাদেশ ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট ফান্ড’ তৈরি করেছেন এবং চলতি বছরের ১৫ মার্চ এ তহবিলের উদ্বোধন করেছেন। এ তহবিলের প্রথম গ্রাহক হিসেবে প্রধানমন্ত্রী পায়রা বন্দরকে বেছে নিয়েছেন এবং ড্রেজিং কাজে এ তহবিল থেকে অর্থায়নের অনুমোদন দিয়েছেন।