সাতক্ষীরায় করোনায় আরও ৪ জনের মৃত্যু

জনপদ ডেস্কঃ সীমান্ত জেলা সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গ নিয়ে আরও ৪ জন মারা গেছে গত ২৪ ঘণ্টায়। এ নিয়ে করোনা উপসর্গ নিয়ে জেরায় মারা গেল ২৪১ জন। আর করোনা পজিটিভ রোগী মারা গেছে ৪৮ জন। যদিও করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে ডাকা বিশেষ লকডাউনের ষষ্ঠ দিন অব্যাহত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১০ জুন) জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে মাঠে করতে দেখা গেছে জনপ্রতিনিধি ও তাদের লোকজনকে। হাসপাতালগুলোতে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। আর সে জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও বেডের সংখ্যা বাড়াচ্ছেন বলে জানিয়েছেন। এদিকে প্রতিদিনই সীমান্ত পেরিয়ে ভারত থেকে লোক আসছে। বুধবার (৯ জুন) ও ৬ জনকে অবৈধ পথে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় বিজিবি আটক করেছে। এনিয়ে গত দু’সপ্তাহে ৪৫ জনকে ভারত থেকে অবৈধ পথে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় বিজিবি আটক করেছে।

একদিকে সীমান্ত পেরিয়ে ভারত থেকে লোক আসছে, অন্যদিকে হাসপাতালগুলোতে কোভিড নন-কোভিড রোগী ও রোগীর লোকজন একই সঙ্গে চলাচল করায় করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি ভয়াবহ আকার ধারণ করছে বলে মনে করেন সুশীল সমাজ। এদিকে প্রতিদিন করোনা টেস্টে ব্যাপক হারে পজিটিভ শনাক্ত হচ্ছে। গতকালও ৯৫ জনের করোনা টেস্টে ৫০ জনের পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। এ নিয়ে ২১৪৭ জনের করোনা পজিটিভ হলো।

সাতক্ষীরা মেডিকেল হাসপাতালে ১২০ জনের মধ্যে ৯০ জন করোনা উপসর্গ নিয়ে ও ৩০ জন করোনা পজিটিভ রোগী ভর্তি রয়েছে। এর মধ্যে ৪ জন পজিটিভ ও ৪ জন করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছে আইসিইউতে। সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ২৮ জনের মধ্যে ২০ জন করোনা পজেটিভ ও রোগী ভর্তি রয়েছে। আরো ভর্তি রয়েছে বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে। সব মিলিয়ে জেলায় ৬০১ জন করোনা রোগী রয়েছে। এর মধ্যে ৫০ জন দুটি হাসপাতালে ও ৫৫১ জন বেসরকারি হাসপাতাল ও বিভিন্ন উপজেলায় বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগী মারা গেছে ৪৮ জন। আর করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে ২৩৭ জন।

এদিকে চলমান লকডাউনের আজ ষষ্ঠ দিনেও কোনোভাবে বন্ধ করা যাচ্ছে না ভ্যান ইজিবাইক মহেন্দ্র। যদিও পুলিশি তৎপরতা ও জেলা প্রশাসনের মোবাইল কোর্টসহ আজ থেকে দেখা গেছে জনপ্রতিনিধিদের সহায়তা করতে। তবে নিম্ন আয়ের এসব মানুষকে থামানো যাচ্ছে না। তাই লকডাউনের সঙ্গে সঙ্গে আগের মতো চাল ডাল দিয়ে সরকারের সহায়তার দাবি জানিয়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষ। যদিও জেলা প্রশাসক জানিয়েছেন, লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য সরকার ২০ লাখ টাকা পাঠিয়েছে, যা দ্রুতই বণ্টন করা হবে।