হোন্ডা বাংলাদেশে সিবিআর ১৫০ আর মডেলের যাত্রা শুরু

জনপদ ডেস্কঃ বাংলাদেশি গ্রাহকদের নতুন এক বাইক এক্সপেরিয়েন্স দিতে বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমিটেড (বিএইচএল) উন্মোচন করেছে রেসিং কোয়ালিটি সম্পন্ন হাই পারফরম্যান্স ফুল ফেয়ারিং স্পোর্টস মোটরসাইকেল সিবিআর ১৫০ আর।  সত্যিকারের স্পোর্টস মোটরসাইকেলের মূল চালিকা শক্তিই থাকে এর পারফরম্যান্স এবং হ্যান্ডলিং দক্ষতা এর ওপর এবং সবার মধ্যে আকর্ষণীয় করে তুলতে এটিকে তৈরি করা হয়েছে আধুনিক ফিচার এবং নজরকাড়া লুক দিয়ে।

শহরমুখী রাইডারের সব চাহিদা পূরণ করার লক্ষেই আমাদের ডেভেলপমেন্ট টিম ‘টোটাল কন্ট্রোল’ এর কনসেপ্ট নিয়ে পুরোপুরি একটি স্পোর্ট বাইক তৈরি করার কাজটি শুরু করে।
স্পোর্ট বাইক লাভারদের ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতেই এগ্রেসিভ, আকর্ষণীয়, আধুনিক, হালকা ওজনের, আরামদায়ক এবং স্পোর্টি ডিজাইনের এই সিবিআর ১৫০ আর বাইকটি বাজারে নিয়ে এসেছে হোন্ডা। নতুন এই মডেলটির সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে অ্যাসিস্ট/স্লিপার ক্ল্যাচ এবং ইনভার্টেড ফ্রন্ট সাশপেনশন ফিচার।

ডিজাইন:

সিবিআর ১৫০ আর মডেলের নতুন ডিজাইনে একটি আকর্ষণীয় বডি এবং বেশ কিছু শার্প অ্যাঙ্গেলের এর দিকে নজর দেওয়া হয়েছে। এই বাইকটিতে কিছু কিছু পার্টস আরো শক্তিশালী কিন্তু হালকা এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে। এর আকর্ষণীয় এলইডি লাইটগুলো সিবিআর ২৫০ আরআর মডেল থেকে অনুপ্রাণিত।

সিবিআর ১৫০আর বাইকটির ক্ল্যাচ এবং আরামদায়ক রাইডিং পজিশনের জন্য একটি পূর্ণাঙ্গ স্পোর্ট বাইকের খেতাব জিতে নিয়েছে। এর সর্বশেষ পরিবর্তনগুলো এই বাইকটিকে এনে দিয়েছে একটি পরিপূর্ণ রেসিং বাইকের আউটলুক।

ইনভার্টেড ফ্রন্ট সাশপেনশনের কারণেই বাইকটি চলার সময় রেসিং রাইডিং স্টাইল ধরে রাখতে পারে। সর্বোচ্চ স্পিডে চললেও এই ফিচারটি থাকার কারণে রাইডারের দৈনন্দিন রাইডিং কোয়ালিটি এবং কনট্রোল উভয়ই বৃদ্ধি পায়। এছাড়াও নতুন এই সাসপেনশন বাইকের হান্ডেলিংয়ে যোগ করেছে নতুন কমফোর্ট। এই মডেলটি শহরের মানুষজনের জন্য একটি পূর্ণাঙ্গ স্পোর্ট মোটরসাইকেলের অনুভূতি দেওয়ার জন্য যথেষ্ট।

নতুন ফিচার:

১২.৬ কিলোওয়াট (১৭.১পিএস) ৯০০০ আরপিএম এবং ১৪.৪ নিউটন মিটার, ৭০০০ আরপিএম এর পিক টর্ক নিশ্চিত করতে এই বাইকে যুক্ত করা হয়েছে হাই পারফর্মেন্স ১৫০ সিসির ডিওএইচসি লিকুইড কুলড ইঞ্জিন। ৬টি স্পিড ট্রান্সমিশন থাকার ফলে এই সিবিআর ১৫০ আর বাইকটি মাত্র ১০.৬ সেকেন্ডে শূন্য থেকে ২০০ মিটার পর্যন্ত উঠে যেতে পারে এবং এটি প্রতি ঘণ্টায় ১২৭ কিলোমিটার পর্যন্ত সর্বোচ্চ স্পিড তুলতে পারে।

এসিস্ট/স্লিপার ক্লাচ নামে নতুন ফিচার সিবিআর ১৫০ আর বাইকটিতে আনন্দময় ভ্রমণে নতুন মাত্রা যোগ করবে। উঁচু-নিচু রাস্তায় চলাচলে পেছনের চাকা এবং ইঞ্জিন ব্রেইকের নিরাপত্তা দেবে স্লিপার ক্ল্যাচ। এই ফিচারটি থাকার ফলে একজন রাইডার বাইক চালানোর সময় খুব আরামদায়কভাবে ক্লাচের ব্যাবহার করতে পারবে।

ইমার্জেন্সি স্টল সিগন্যালের (ইএসএস) সঙ্গে অ্যান্টি লক ব্রেকিং সিস্টেমের (এবিএস) মতো আরো দারুণ সব ফিচার রয়েছে এই সিবিআর ১৫০আর মডেলের বাইকটিতে। তাৎক্ষণিক ব্রেক ধরার প্রয়োজন বুঝে অনেক বড় বড় বাইক মডেলস এও এই রাইট-লেফট টার্ন সিগন্যাল ফিচারটি অ্যাপ্লাই করা হয়েছে। এছাড়াও স্পোর্টি অভিজ্ঞতা দিতে এই বাইকে রয়েছে ওয়েভি ডিস্ক ব্রেক। পাশাপাশি, বাইকের সামনে থাকা পুরোপুরি আধুনিক স্লিম মিটার প্যানেলের ডিসপ্লে রাইডারকে বাইকের যাবতীয় তথ্য প্রদর্শন করবে।
বিশ্বব্যাপী সিবিআর এর অসাধারণ স্পোর্টি পারফর্মেন্স এর সুনাম রয়েছে।

হোন্ডা বাংলাদেশের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক মুত্সুও উসুই বলেন, ১০০০ আরআর নামের মডেলের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে হোন্ডার সিবিআর সিরিজ। ধারাবাহিকভাবে গবেষণা এবং উন্নয়নের মাধ্যমে বাজারে এসেছে ৬০০ আরআর, ৫০০আরআর, ৩০০আরআর ও ২৫০ আরআর  মডেল এবং সর্বাধুনিক সুবিধা নিয়ে সর্বশেষ সংযোজন হলো সিবিআর ১৫০ আর।
সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং বিভাগের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট নরেশ কুমার রতন বলেন, বৈশ্বিক বাজারে পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে গ্রাহকের চাহিদাতেও পরিবর্তন এসেছে। তাই গবেষণা ভিত্তিক উন্নয়নের মাধ্যমে নতুন পণ্য নিয়ে এসেছি আমরা। সিবিআর ১৫০ আর এই নতুনত্বের ই অংশ। বাংলাদেশের বাজারে হোন্ডার অনুমোদিত বিক্রয় কেন্দ্রে ৫ লাখ ৩৮ হাজার টাকায় পাওয়া যাবে সিবিআর ১৫০ আর।

হোন্ডা সিবিআর ১৫০ আর মডেলের বাইকটি নিয়ে আরো বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন (www.bdhonda.com)