আরও ১৯ জোড়া ট্রেন চলবে ৯ জুন থেকে

জনপদ ডেস্ক: স্বাস্থ্যবিধি মেনে আগামী ৯ জুন থেকে বাংলাদেশ রেলওয়ে আরও ৯ জোড়া আন্তঃনগর এবং ১০ জোড়া মেইল এক্সপ্রেস ও কমিউটার ট্রেন পরিচালনা করবে। রোববার (৬ জুন) বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালকের ট্র্যাফিক ট্রান্সপোর্টেশন শাখা থেকে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) শাহাদাত আলী সরদার ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমরা ধীরে ধীরে রেলপথে ট্রেন পরিচালনা বাড়িয়ে দিচ্ছি। এখন চলাচল করছে ২৮ জোড়া আন্তঃনগর ট্রেন-তার সঙ্গে আগামী ৯ জুন থেকে যুক্ত হচ্ছে ৯ জোড়া আন্তঃনগর ট্রেন। মেইল ও কমিউটার ট্রেন চলছে ৯ জোড়া, আরও ১০ জোড়া পরিচালনা করা হবে ৯ জুন থেকে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটের সোনার বাংলা এক্সপ্রেস,

ঢাকা-তারাকান্দি রুটের অগ্নিবীণা এক্সপ্রেস,

ঢাকা-সিলেট রুটের জয়ন্তিকা/উপবন এক্সপ্রেস,

চট্টগ্রাম-সিলেট রুটের পাহাড়িকা/উদয়ন এক্সপ্রেস,

রাজশাহী-চিলাহাটি রুটের বরেন্দ্র এক্সপ্রেস,

খুলনা-চিলাহাটি রুটের সীমান্ত এক্সপ্রেস,

ঢাকা-কুড়িগ্রাম রুটের কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস,

পঞ্চগড়-রাজশাহী রুটের বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস ও

ঢাকা-পঞ্চগড় রুটের পঞ্চগড় এক্সপ্রেস।

৯ জুন থেকে যেসব মেইল ও কমিউটার ট্রেন চলবে

ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটের ঢাকা/চট্টগ্রাম মেইল,

ঢাকা-সিলেট রুটের সুরমা মেইল,

ঢাকা- আখাউড়া রুটের তিতাস কমিউটার,

ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ বাজার রুটের দেওয়ানগঞ্জ কমিউটার,

চট্টগ্রাম-বঙ্গবন্ধু সেতু (পূর্ব) রুটের ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস,

ঢাকা-মোহনগঞ্জ রুটের মহুয়া কমিউটার,

রাজবাড়ি-ভাঙ্গা রুটের রাজবাড়ি এক্সপ্রেস,

লালমনিরহাট-বিরল রুটের বিরল কমিউটার,

লালমনিরহাট-সান্তাহার রুটের বগুড়া কমিউটার ও

বোনারপাড়া-সান্তাহার রুটের কলেজ ট্রেন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার কারণে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী গত ৫ এপ্রিল থেকে বাংলাদেশ রেলওয়ের সব যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। গত ২৩ মে জারি করা সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী ২৪ মে থেকে আসন সংখ্যার অর্ধেক (৫০ শতাংশ) যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন পরিচালনার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

এ নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে ২৪ মে থেকে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ২৮ জোড়া আন্তঃনগর এবং
৯ জোড়া মেইল এক্সপ্রেস ও কমিউটার ট্রেন মোট আসনের ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি ও ট্রেন পরিচালনা করা হচ্ছে।

এদিকে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান সরকারি বিধিনিষেধ ৬ জুন মধ্যরাত থেকে ১৬ জুন মধ্যরাত পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। বিধিনিষেধ চলাকালে আন্তঃজেলাসহ সব ধরনের গণপরিবহন আসন সংখ্যার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচল করতে পারবে।