গরম পানির ভাপ নিলে কি করোনা থেকে সুরক্ষা মেলে?

জনপদ ডেস্কঃ করোনায় সংক্রমিত অনেকেই বলে থাকেন, গরম পানির ভাপ নেওয়ার কথা।  লবণপানি দিয়ে কুলিকুচি করতেও বলেন অনেকে।  তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কুলিকুচি করলেই যে করোনা থেকে মুক্ত হওয়া যাবে এটির এখন পর্যন্ত কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

চিকিৎসকেদের মতে, গলা দিয়েই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে করোনার ভাইরাস শরীরে প্রবেশ করে। শরীরে প্রবেশের পর রক্তে তা মিশে যাওয়ার আগেই গরম পানির ভাপ নিলে তা খানিকটা গলিয়ে ফেলতে সাহায্য করতে পারে।

করোনা রোগীর শরীর দুর্বল থাকে। এ সময় করোনাভাইরাস ছাড়াও অন্যান্য ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া সুযোগ বুঝে অনেক সময় মানুষের শরীরে ঢোকার চেষ্টা করে।  এ ক্ষেত্রে গরম পানির ভাপ নিলে এবং কুসুম গরম পানির কুলিকুচি করলে এগুলো থেকে কিছুটা মুক্তি পাওয়া যেতে পারে।

তাই বলা যায়, করোনায় প্রতিরোধে অনেকটাই কাজে দিতে পারে গরম পানির ভাপ।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, শুধু ভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়ার আশায় গরম পানির ভাপ নিতে বা কুলিকুচি করতে বলা হচ্ছে না। তাদের মতে, ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে যদি গলায় কোনো সমস্যার দেখা দেয়, তা হলে সেটি কমাতে গরম পানির ভাপ কাজে দিতে পারে। এ ক্ষেত্রে দিনে ঘন ঘন গরম পানির ভাপ নিলে আর কুলিকুচি করলে রোগী আরাম পেতে পারে।

গরম পানির ভাপ নিলে বা কুলকুচি করলেই যে ভাইরাসমুক্ত হয়ে যাবে এমন প্রমাণ না থাকলেও এটি করা জরুরি বলে মনে করেন চিকিৎসকরা।  কারণ এই পদ্ধতিতে রোগী অনেকটা স্বস্তি পেতে পারেন।