মিয়ানমারের উপর চাপ প্রয়োগের কথা বললেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

জনপদ ডেস্কঃ অন্যান্য রোহিঙ্গা আশ্রয় ক্যাম্পের মতো ভাসানচরেও যুক্ত হচ্ছে জাতিসংঘের শরনার্থীবিষয়ক সংস্থা- ইউএনএইচসিআর। ভাসানচর পরিদর্শন করে এসে করোনার মধ্যেও বাংলাদেশ সরকারের ব্যবস্থাপনার প্রশংসা করেছেন প্রতিনিধিদলের সদস্যরা। এদিকে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের সামরিক সরকারের ওপর চাপ প্রয়োগে আবারো আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অনুরোধ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে এম আব্দুল মোমেন।

আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে ভাসানচরে বাংলাদেশ সরকার মিয়ানমার থেকে প্রাণভয়ে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর জন্য নির্মাণ করেছে বিশাল অবকাঠামো। সেখানে ধাপে ধাপে পৌঁছেছে ১৯ হাজারের মতো রোহিঙ্গা।

নির্মাণের পূর্বে ক্যাম্পের জীবনমান নিয়ে শঙ্কা জানিয়েছিল আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা। সেই ভাসানচর ঘুরে এসেই উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছে ইউএনএইচসিআর।

বুধবার (২ জুন) সকালে রাজধানীর রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে বৈঠক করেন জাতিসংঘের একটি প্রতিনিধিদল। বৈঠক শেষে সংবাদমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে আলাপচারিতায় আন্তর্জাতিক সংস্থাটির প্রতিনিধিরা করোনাকালে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বাংলাদেশ সরকারের ব্যবস্থাপনার প্রশংসা করেন।

রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তন প্রশ্নে মিয়ানমারের জান্তা সরকারের সময়ে পরিস্থিতি অনেক জটিল বলেও শঙ্কার কথা জানান জাতিসংঘের অ্যাসিস্ট্যান্ট হাইকমিশনার ফর প্রটেকশন কর্মকর্তা গিলিয়ান ট্রিগস।

এদিকে রোহিঙ্গাদের ফেরত না নেওয়ায় হতাশা জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন জাতিসংঘকে মিয়ানমারের সামরিক সরকারের উপর চাপ প্রয়োগের অনুরোধ জানান।

দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফর শেষে আজই ইউএনএইচসিআরের এ প্রতিনিধিদলটি ঢাকা ছেড়ে যাবে।