আদালতে জুহি চাওলা

জনপদ ডেস্ক: গোটা বিশ্বে ফাইভ-জি পরিষেবা চালু করার কথা ভাবছে টেলিকম সংস্থাগুলো। নতুন এই পরিষেবা চালু করার কথা ভাবছে ভারতও। যদিও অনেকেই মনে করছেন, এটি চালু হলে বর্তমান ও ভবিষ্যত প্রজন্মের ওপর শারীরিকভাবে খারাপ প্রভাব পড়বে।

এবার ফাইভ-জি পরিষেবা চালুর বিরুদ্ধে এগিয়ে এলেন বলিউড অভিনেত্রী ও পরিবেশবিদ জুহি চাওলা। রেডিও ফ্রিকোয়েন্সির বিকিরণের ক্ষতিকারক প্রভাব সম্পর্কে বহু দিন ধরেই সচেতনতার বার্তা দিচ্ছেন নায়িকা। এবার তাই ভারতে ফাইভ-জি মোবাইল প্রযুক্তি প্রয়োগের বিরুদ্ধে মামলা করলেন জুহি। খবর এনডিটিভির।

সোমবার (৩১ মে) বিচারপতি সি হরিশঙ্করের বেঞ্চ এই বিষয়টি পুনরায় শুনে, দিল্লি হাইকোর্টের অন্য একটি বেঞ্চে স্থানান্তর করেন। মামলাটির পরের শুনানি হবে বুধবার (২ জুন)।

সংবাদমাধ্যমকে জুহি বলেন, ‘আমরা দেশের প্রযুক্তগত উন্নতির বিপক্ষে নই। আমরা প্রায় সবাই বাজারে নতুন আসা ওয়্যারলেস নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু আরএফ রেডিয়েশন নিয়ে আমাদের সবার মধ্যেই একটা দ্বিধা কাজ করে। বেশ কিছু সমীক্ষা ও পরীক্ষানীরিক্ষার মাধ্যমে এর মধ্যেই আমরা জানতে পেরেছি মানুষ ও পশু-পাখিদের শরীরের জন্য এটা কতটা ক্ষতিকর।’

তবে দেশটির টেলিকম মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সায়েন্স ও ইঞ্জিনিয়ারিং রিসার্চ বোর্ডের করা কোনো পরীক্ষাতেই ২জি, ৩জি, ৪জি, ৫জি নেটওয়ার্কের মানুষ ও জীবজন্তুর শরীরে কোনো ক্ষতিকারক প্রভাব ফেলার বিষয়টি সামনে আসেনি। সেলুলার অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়ার ডিরেক্টর জেনারেল এস পি কোচার জানিয়েছেন, বিশ্বের বহু দেশ ৫জি নেটওয়ার্কের সুবিধা পাচ্ছে। এই পরিষেবা কোনো রকম সমস্যা ছাড়াই সংশ্লিষ্ট দেশের সাধারণ মানুষ ব্যবহার করছেন। বিশেষত বর্তমান সময়ে এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলেই তাদের মত। কেননা এখন ওয়ার্ক ফ্রম হোম, অনলাইন ক্লাস থেকে শুরু করে চিকিৎসা পরিষেবাও মিলছে টেলি যোগাযোগ ব্যবস্থার মাধ্যমে অনলাইনেই।