লকডাউন উপেক্ষা করে ঢাকা যাচ্ছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শ্রমজীবী মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ভারতের সীমান্তবর্তী জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, সেই সঙ্গে দেখা দিয়েছে হাসপাতালের শয্যা ও অক্সিজেনের সংকট।

অক্সিজেন প্রয়োজন এমন অনেক রোগী হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সুযোগ না পেয়ে বাড়িতে চলে যাচ্ছেন। আবার অনেকে চলে যাচ্ছেন পার্শ্ববর্তী রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও নাটোর সদর হাসপাতালে।

দেশে করোনার নতুন হটস্পট হয়ে ওঠা চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনার সংক্রমণ বাড়তে শুরু করে গত ঈদুল ফিতরের পর থেকে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের লকডাউন উপেক্ষা করে রাজশাহীর বাস, রেলওয়ে স্টেশনে আসছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাসিন্দারা। তারা কথা বলার সময় এড়িয়ে চলছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের আঞ্চলিক ভাষা।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনা সংক্রমণের ব্যাপকতা ছড়িয়ে পড়ার কারণে ২৪ মে থেকে সেখানে বিশেষ লকডাউন দেওয়া হয়েছে। গত শুক্রবার এই জেলার সাতজনের শরীরে করোনার ভারতীয় ধরন পাওয়া গেছে।

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রায় অর্ধেকের বেশি করোনার রোগী চাঁপাইনবাবগঞ্জের। এসব কারণে জেলাটির শ্রমজীবী মানুষ নিজেদের পরিচয় গোপন করে অন্য জেলায় যাচ্ছেন। তারা সকাল থেকে বসে থাকছেন রেলওয়ে চত্বরে। তারা কাজের যন্ত্রপাতি সহ তাদের জামা কাপড়ের একটি ব্যাগ সাথে নিয়ে বসে আছে ঢাকায় যাওয়ার জন্য।

রেলস্টেশনে ট্রেনের অপেক্ষারত এসব যাত্রীর মধ্যে ছিল না সামাজিক দূরত্ব। মাস্কও ছিল না কারও মুখে। স্বাস্থ্যবিধি মানতে তেমন নজরদারিও দেখা যায়নি। এমন অবস্থাতেই স্টেশন এলাকায় ট্রেনের অপেক্ষায় ছিলেন যাত্রীরা।

অন্যদিকে অতিরিক্ত যাত্রীদের চাপ থাকায় বাসে পাচ্ছে না পর্যাপ্ত আসন। তাই সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ষ্টেশন চত্বরে অবস্থান করছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আসা শত শত শ্রমজীবী মানুষ।